কোপা আমেরিকা জেতেননি যে কিংবদন্তিরা

চলতি মাসে শুরু হয়েছে লাতিন আমেরিকার সর্ববৃহৎ ফুটবল প্রতিযোগিতা কোপা আমেরিকা কাপ। এবারের টুর্নামেন্টটি ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত হলেও গোটা লাতিন আমেরিকাই মেতে আছে এটি নিয়ে। অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর রাস্তা থেকে শুরু করে প্রশাসনিক ভবন, সবখানেই শোভা পাচ্ছে নান্দনিক সব ব্যানার, পোস্টার। আর সেসব ব্যানার, পোস্টারে স্থান পেয়েছে দেশগুলোর কোপা আমেরিকা জয়ী কিংবদন্তিদের তৈলচিত্র এবং শিরোপা উদযাপনের ছবি।

Image Source: AS

১৯১৬ সালে শুরু হওয়া এই টুর্নামেন্টের ৪৬ তম আসরটি চলছে এবার। কিন্তু এই দীর্ঘ সময়ে লাতিন আমেরিকায় জন্মানো অনেক ভুবনবিখ্যাত কিংবদন্তি ফুটবলারই জিততে পারেননি কোপা আমেরিকার শিরোপাটি। ফুটবলের অতীত ঘাঁটলে এই লাতিন আমেরিকাকেই বলা হবে ফুটবলের তীর্থস্থান। কারণ আন্টলান্টিকের মমতায় সেখানে যুগে যুগে জন্মেছেন অনেক কিংবদন্তি ফুটবলার।

কোপা আমেরিকার শিরোপা; Image Source: AS

তবে তাদের মধ্যে অনেকে এই কোপা আমেরিকার শিরোপা জিততে না পেরে বেশ অনুশোচনা করেছেন। স্থান দিয়েছেন জীবনের না পাওয়াগুলোর তালিকায়। সবাই যখন কোপা আমেরিকার চলমান আসর নিয়ে ব্যস্ত তখন আমরা খুঁজে বের করেছি এমন কয়েকজন তারকাকে যারা ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ প্রায় সকল পুরষ্কার জিতলেও জেতেননি এই কোপা আমেরিকার শিরোপা। শুধু তাই নয়, তাদের মধ্যে কেউ কেউ আবার বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টের শিরোপাও চুমু খেয়েছেন একাধিকবার। চলুন জানা যাক তাদের সম্পর্কে।

দিয়েগো ম্যারাডোনা

আটলান্টিকের মমতায় বেড়ে উঠা কিংবদন্তি ফুটবলারদের মধ্যে তর্কাতীতভাবে দিয়েগো ম্যারাডোনা সর্বকালের সেরা। পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে লাতিন দাপিয়ে ইউরোপও জয় করেছেন তিনি। খেলেছেন নাপোলি, বার্সেলোনার মতো একাধিক বড় দলে। শুধু তাই নয়, আর্জেন্টিনাকে তিনি ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপও উপহার দেন। সেবার তার একক নৈপুণ্যে নিজেদের ইতিহাসে প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জেতে আর্জেন্টিনা।

দিয়েগো ম্যারাডোনা; Image Source: 90Mins

কিন্তু এত এত অর্জন আর ইতিহাসের সেরাদের কাতারে শীর্ষস্থান লাভ করলেও দিয়েগো ম্যারাডোনা কখনোই জিততে পারেননি কোপা আমেরিকা কাপের শিরোপাট। রূপালী এই শিরোপা জেতার আক্ষেপ অনেকবার সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করেছিলেন তিনি। ১৯৯১ এবং ১৯৯৩ সালে নিজ দেশে অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকায় অংশগ্রহণ করতে পারেননি ম্যারাডোনা। তখন তিনি নিষিদ্ধ ঔষধ সেবনের অভিযোগে ফুটবল থেকে নিষিদ্ধ ছিলেন।

পেলে

নিঃসন্দেহে ফুটবল ইতিহাসের সেরা ফুটবলার ব্রাজিলের পেলে। যে যাই বলুক, অন্তত ফুটবলে তার অর্জনগুলো তার পক্ষেই কথা বলে। সেকালে লাতিনদের স্বর্ণযুগে তিনিই ছিলেন সেখানকার মাথার উপর দন্ডায়মান ফুটবল ঈশ্বর। ইউরোপ বর্তমান সময়ে ফুটবল বিশ্বে রাজত্ব করলেও এখন অবধি পেলের মতো কাউকে গড়ে তুলতে পারেনি।

পেলে; Image Source: 90Mins

ফুটবলের এত এত রেকর্ড এবং শিরোপার মালিক পেলে তার ক্যারিয়ারে সর্বমোট ৩ বার বিশ্বকাপ শিরোপা জিতলেও কখনোই কোপা আমেরিকা কাপ জিততে পারেননি। যদিও তিনি তার গোটা ফুটবল জীবনে মাত্র ১ বারই এই টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ১৯৫৯ সালের টুর্নামেন্টে তিনি ৬ ম্যাচে ৮ গোল করে ব্রাজিলকে ফাইনালে উঠান। যদিও সেবার আর্জেন্টিনার বিপক্ষে পরাজিত হয়ে শিরোপা বঞ্চিত থাকে পেলের ব্রাজিল।

লিওনেল মেসি

বর্তমান সময়ের ফুটবল ভক্তরা যে দুইজন তারকার ফুটবল উপভোগ করে নিজেকে ধন্য মনে করছেন তাদের মধ্যে লিওনেল মেসি অন্যতম। ক্যারিয়ারে এমন কোনো ব্যক্তিগত পুরষ্কার নেই যেটা মেসি জেতেননি। তাকে ভাবা হয় বাঁ পায়ের সেরা ফুটবলার হিসেবে। ৫টি ব্যালন ডি’অর এবং ৬টি গোল্ডেনবুট জয়ী মেসি বার্সেলোনার সোনালী ইতিহাসের স্রষ্টাও বটে। বার্সেলোনা এখন অবধি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছে সর্বমোট ৫ বার। আর এর মধ্যে ৪ বারই এসেছে মেসির কল্যাণে।

লিও মেসি; Image Source: 90mins

কিন্তু এত এত অর্জনের মাঝেও একটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জিততে পারেননি তিনি। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে পরাজয়, অতঃপর ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে কোপা আমেরিকার ফাইনালেও পরাজিত হন মেসি। মাত্র ৬ বছরের ব্যবধানে এতবার স্বপ্নভঙ্গ হওয়ার ব্যাথা নিয়েই এখন অবধি আর্জেন্টিনার নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদো ২০১৬ সালে ইউরো জেতার পর সংবাদমাধ্যম এবং নিজ দেশের মানুষের কাছে বেশ সমালোচিত হন এই কিংবদন্তি।

হাভিয়ের জানেত্তি

লাতিন আমেরিকায় জন্মেও ইউরোপে রাজত্ব করা ফুটবলারদের মধ্যে হাভিয়ের জানেত্তি অন্যতম একজন। পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে ইতালিয়ান জায়ান্ট ইন্টার মিলানের হয়ে প্রায় সাতশো ম্যাচ খেলেছেন এই ডিফেন্ডার। ইতালিয়ান না হয়েও পরেছিলেন মিলানের ক্যাপ্টেন আর্মব্যান্ড। মালদিনি যখন এসি মিলানের হয়ে ইউরোপে সুনাম কুড়াচ্ছিলেন তখন ইন্টার মিলানের হয়ে জেনেত্তিও সমান তালে ইউরোপকে নিজের অস্তিত্বের জানান দেন। তিনি লাতিন আমেরিকান না হয়ে ইউরোপিয়ান হলে হয়তো সর্বকালের সেরা ডিফেন্ডারদের তালিকায়ও জায়গা পেতেন সহজে।

হাভিয়ের জেনেত্তি; Image Source: 90Mins

জেনেত্তি আর্জেন্টিনার জার্সিতে খেলেছেন রেকর্ড ১৪৩টি ম্যাচ। অংশগ্রহণ করেছিলেন ৫টি কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্টে। যদিও একবারও ছুঁয়ে দেখতে পারেননি শিরোপাটি। ২০১১ সালে অবসরে যাওয়ার পর কোপা আমেরিকা না জেতায় বেশ আক্ষেপ করেন জেনেত্তি। মিলানের হয়ে প্রায় সকল ঘরোয়া এবং ইউরোপিয়ান শিরোপা জিতলেও কোপা আমেরিকা জিততে না পারার আক্ষেপ বেশ ভালোভাবেই ব্যাথিত করেছে এই কিংবদন্তিকে।

কার্লোস ভালদেরেমা

লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের সর্বকালের সেরা মিডফিল্ডার কার্লোস ভালদেরেমা কলম্বিয়ার হয়ে খেলেছেন সর্বমোট ১১১টি ম্যাচ। এখন অবধি কলম্বিয়ানরা তাকে নিজেদের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার হিসেবেই দেখে। পেশাদার ফুটবলে ক্যারিয়ারে খেলেছেন লাতিন এবং স্প্যানিশ প্রায় এক ডজন দলে। সবখানেই রেখেছেন নিজের কৃতীত্বের ছাঁপ।

কার্লোস ভালদেরেমা; Image Source: 90Mins

ফুটবলে যার এত এত অর্জন সেই ভালদেরেমা ৩ বার কোপা আমেরিকায় অংশগ্রহণ করেও শিরোপা জিততে পারেননি। দুইবারই সেমিফাইনালে পরাজিত হয়ে বিদায় নেয় কলম্বিয়া। শুধু তাই নয়, কলম্বিয়ার হয়ে দীর্ঘ সময় নেতৃত্ব দিলেও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে কোনো সফলতাই পাননি ভালদেরেমা। সেই কারণে তাকে বলা হয় লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের সবচেয়ে দুর্ভাগা ফুটবলার।

Featured Image: 90Mins

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *