বার্সার শিরোপা স্বপ্ন বনাম অ্যাটলেটিকো বাঁধা

দীর্ঘদিন যাবৎ লা লিগা বলতেই বোঝানো হত দুই ঘোড়ার রেস। রিয়াল মাদ্রিদ আর বার্সেলোনাই শিরোপা ভাগাভাগি করে নিয়েছে। মাঝে ভ্যালেন্সিয়া বা ভিলারিয়াল এলেও কখনো তারা খুব বেশি হুমকি ছিল না। কিন্তু সময় বদলেছে ২০১৪ সালের পর থেকে। সেবার লা লিগা শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছিল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এরপর থেকেই লা লিগায় রিয়াল আর বার্সার সাথে প্রতিদ্বন্দী হিসেবে নাম লেখায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ

বার্সার শিরোপা দৌড়ে এমনই বাঁধা হতে চায় অ্যাটলেটিকো; Image source – gettyimages

৯ বছর পর ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো মাদ্রিদ শহরকে বিদায় বলার পর থেকেই রিয়ালে খুব বেশি ভাল সময় যাচ্ছেনা। সেই সময়ে পথ হারিয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদও। বার্সেলোনা সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে এখনই লিগে এগিয়ে আছে আট পয়েন্টে। কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দের মতে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ নয়, বার্সার মূল লক্ষ্য লা লিগা। আর অ্যাটলেটিকো বস দিয়েগো সিমিওনে হুঙ্কার দিলেন, বার্সাকে সহজেই লিগ জিততে দিবেনা তার দল।

এগারো নাকি পাঁচ?

শিরোপা দৌড়ের শেষ প্রান্তে লা লিগার এবারের মৌসুম। এপ্রিলের সময়সূচির পর মোটামুটি অঘটন না ঘটলে বার্সেলোনাই তাদের ঘরে লিগ শিরোপা রেখে দিচ্ছে। এখন পর্যন্ত লিগে তাদের লিড আট পয়েন্টের। আজ জিতলে যা দাঁড়াবে এগারোতে। আর সেক্ষেত্রে খুব বেশি কিছু করার নেই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জন্য। আর সে লক্ষ্যেই আজ মাঠে নামবে ব্লু গ্রানাররা। উপরন্তু ম্যাচ হবে বার্সেলোনার মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে। এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে সমর্থকদের ঘরের মাঠেই শিরোপা স্বাদ দিতে চায় মেসি এন্ড কোং।

শিরোপার প্রশ্নে মুখোমুখি বার্সা আর অ্যাটলেটিকোর দুই বড় তারকা Image source – dnaindia

কিন্তু অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদও ছেড়ে কথা বলার নয়। সিমিওনে চাইবেন আজকের ম্যাচে ব্যবধান পাঁচে নিয়ে আসতে। ভিলারিয়ালের সাথে বার্সেলোনার ড্রয়ের বিপরীতে গ্রানাডাকে ২-০ গোলে হারিয়েছে অ্যাটলেটিকো। এই কমিয়ে আনা ব্যবধান আরেকটু কমিয়ে নিজেদের লিগে ফেরার সম্ভাবনা দেখতে চান মাদ্রিদের লাল অংশের প্রতিনিধিরা।

দুই দলের ড্রেসিংরুম যেমন

ভিলারিয়ালের সাথে ৪-৪ গোলের ড্রতে অনেক কিছুই বুঝে নেবার বাকি বার্সা শিবিরের। একদিকে শেষ মুহুর্তের অসাধারণ কামব্যাক যেমন দলগত বার্সার শক্তি বোঝায় তেমনি প্রশ্ন আছে লিওনেল মেসিকে ছাড়া বার্সেলোনার সক্ষমতা নিয়ে। মিডফিল্ডে রাকিটিচের সেই ক্ষুরধার ফর্ম খানিক ঝিমিয়ে পড়া, সুয়ারেজের বয়স আর বিশাল অঙ্কের টাকায় আনা কুতিনহোর বাজে পারফর্ম বার্সাকে অতিমাত্রায় মেসি নির্ভর করে তুলেছে। এর মাঝে সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে তরুণ তুর্কি উসমান ডেম্বেলের ইনজুরিটাও। আজকের ম্যাচে নিষেধাজ্ঞা আছে অভিজ্ঞ আর্তুরো ভিদালের পিছনেও।

আজও নজর থাকছে মেসির উপরেই; Image source – gettyimages

তবে স্বস্তির জায়গা সেই লিওনেল মেসিই। এই মৌসুমে শীর্ষ পাঁচ লিগে সর্বোচ্চ গোলের মালিক সময়ের সেরা এই তারকা। শেষ তিন ম্যাচে ফ্রি কিক থেকে করেছেন তিন গোল। এছাড়া নিয়মিত অ্যাসিস্ট তো আছেই। লা লিগার এবারের মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল, সর্বোচ্চ অ্যাসিস্টসহ সম্ভাব্য সবই নিজের করে নিয়েছেন মেসি। এছাড়া দলের আরেক ভরসা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টার স্টেগান। জার্মানিতে জাতীয় দলে এখনো নিয়মিত হতে না পারা টার স্টেগান নিজেকে রীতিমতো বার্লিনের দেয়াল হিসেবে উপস্থাপন করছেন। গত ম্যাচে চার গোল হজম করলেও তার রেটিং ছিল ৬ এর উপরে।

অ্যাটলেটিকোর বড় ভরসা গ্রিজমান; Image source – gettyimages

বার্সার শক্তি যদি হয়ে থাকেন লিওনেল মেসি তবে অ্যাটলেটিকোর শক্তি অবশ্যই ডিয়েগো গোডিন এবং আতোঁয়ান গ্রিজমান। অ্যাটলেটিকো এই ম্যাচে পাবে না দিয়েগো কস্তা, থমাস লেমার এবং আলভারো মোরাতার মতো পরীক্ষিত খেলোয়াড়দের। এছাড়া বড় ধাক্কা হিসেবে থাকছে আগামী গ্রীষ্মে বায়ার্নে চলে যাওয়া লুকাস হার্নান্দেজের অনুপস্থিতি।

দল হিসেবেই জয় চায় অ্যাটলেটিকো; Image source – upl.com

এতকিছুর পরেও বেশ শক্তিশালী স্কোয়াড নিয়েই ন্যু ক্যাম্পে পা রাখবে অ্যাটলেটিকো। গোলবারের নিচে অবলাক বেশ বিশ্বস্ত। গিমেনেজ এই ম্যাচে জুটি বাঁধবেন অভিজ্ঞ ডিয়েগো গোডিনের সাথে। মাঝমাঠে থাকবেন সল নিগুয়েজ আর কোকের মতো অভিজ্ঞতা আর তারুণ্য। আর আক্রমণে গ্রিজমানের সঙ্গী হবেন মেসির স্বদেশী অ্যাঙ্গেল কোরেয়া। এছাড়া রদ্রি এবং থমাস থাকবেন মাঝমাঠে রাকিটিচ আর আর্থুরের মাঝে বড় দেয়াল হয়ে থাকার জন্য।

মাঠের সাম্প্রতিক ফর্ম

একমাত্র কাতালুনিয়া সুপারকাপে জিরোনার সাথে ১-০ গোলের হার ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে দারুণ ছন্দে আছে বার্সেলোনা। এবং তার পুরো কৃতিত্ব বলতে গেলে একা হাতেই নিতে পারেন লিওনেল মেসি। সম্প্রতি রিয়াল মাদ্রিদ আর লিঁওর সাথে গুরুত্বপূর্ণ দুটি ম্যাচে বড় অবদান রেখেছেন মেসি। আছেন মৌসুমের সেরা ফর্মে। মেসি আর টার স্টেগানকে বাদ দিলে বার্সার সবচেয়ে বড় সম্ভাবনা ম্যালকম আর কুতিনহো।

বার্সায় নিজেকে মেলে ধরার এবারই সুযোগ কুতিনিয়োর জন্য; Image source – goal.com

শুনতে অবাক লাগলেও আপাতত কুতিনহো বার্সার জন্য ট্রাম্পকার্ড। ডেম্বেলের পরিবর্তে নিয়মিত একাদশে থাকা কুতিনহোর এটাই বার্সায় নিজেকে মানিয়ে নেয়ার সুবর্ণ সুযোগ। গেল ম্যাচে গোল করে নিজেকে খানিক চেনাতেও চেয়েছেন এই ব্রাজিলিয়ান। আর ম্যালকম বেঞ্চ থেকে মাঠে নামার সুযোগ পেলেই নিজেকে পুরোদস্তুর মেলে ধরছেন।

সিমিওনের সামনে আজ বড় এক পরীক্ষা; Image source – gettyimages

বার্সা যখন সাম্প্রতিক ফর্মে খানিক তৃপ্ত তখন সিমিওনের কপালে আছে চিন্তার ভাঁজ। শেষ পাঁচ ম্যাচের দুটিতে দেখেছেন পরাজয়। যার একটি রোনালদোর কাছে জুভেন্টাসের মাটিতে। রীতিমতো উড়তে থাকা সেই দলকে একা হারিয়েছেন রোনালদো। এরমাঝে যুক্ত হয়েছে মাঠে থমাস লেমার, দিয়েগো কস্তা আর লুকাস হার্নান্দেজের অনুপস্থিতি। সাম্প্রতিক ফর্ম বা লিগ টেবিল কিছুই আপাতত পক্ষে নেই সিমিওনের। পক্ষে নেই খেলার মাঠ ন্যু ক্যাম্পটাও।

পরিসংখ্যানের সমীকরণ

এপর্যন্ত ২০৯ বার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে বার্সেলোনা এবং অ্যাটলেটিক মাদ্রিদ। দুই দলের মাঝে সবদিক থেকেই এগিয়ে আছে বার্সেলোনা। ৯৩ ম্যাচে জয়ের পাশাপাশি ড্র করেছে ৫০ ম্যাচ। আর বাদবাকি ৬৫ ম্যাচের ফলাফল গিয়েছে অ্যাটলেটিকোর পক্ষে। সবশেষ দশ ম্যাচের মধ্যে বার্সা জিতেছে ছয় ম্যাচ আর চার ম্যাচটি হয়েছে ড্র।

নভেম্বরের ফিরতি ম্যাচে বার্সার গোলের পর উল্লাসিত সুয়ারেজ ডেম্বেলে; Image source – gettyimages

দুই দলের এবারের লিগে নভেম্বরের ম্যাচটি ড্র হয়েছিল ১-১ গোলে। দিয়েগো কস্তার গোলে সে ম্যাচে এগিয়ে গেলেও অন্তিম সময়ে ডেম্বেলের গোলে হার এড়ায় বার্সেলোনা।

মুখোমুখি লিগের সেরা দুই কোচ ভালভার্দে এবং সিমিওনে; Image source – gettyimages

বার্সেলোনার সামনে শিরোপা নিশ্চিতের মিশন। এই ম্যাচ জিতলে কেবল চ্যাম্পিয়ন্স লিগ নিয়েই মাথা ঘামাতে হবে আর্নেস্তো ভালভার্দের দলকে। আর দিয়েগো সিমিওনের শেষ স্বপ্ন বলতে গেলে লা লিগা। মরণকামড় দিতে কোন ছাড় দিবেন না আগ্রাসী এই কোচ। সিমিওনে কি পারবেন স্বদেশী লিওনেল মেসিকে আটকে দিয়ে অ্যাটলেটিকোর সম্ভাবনা বাড়াতে? আপাতদৃষ্টিতে উত্তরটা দেয়া বেশ কঠিন, অন্তত ন্যু ক্যাম্পে বল গড়ানোর আগে।

Feature Image – dnaindia  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *