অস্ট্রেলিয়ার সাথে ৩৬ রানের জয় ভারতের

চলতি ২০১৯ বিশ্বকাপ আসর ‘রাউন্ড রবিন’ ধারায় আয়োজিত হওয়ার কারণে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা ১০টি দলকে মুখোমুখি হতে হবে প্রত্যেকটি দলের সাথে। একারণে ক্রিকেটপ্রেমীরা এবারের বিশ্বকাপের প্রথম পর্বেই আসরের ফেভারিট দলগুলোর সম্মুখ লড়াই দেখার সুযোগ পাবে। টুর্নামেন্টের ১৪তম ম্যাচে গতকাল লন্ডনে মুখোমুখি হয় আসরের অন্যতম দুই ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া এবং ভারত।

আগে ব্যাটিং করে প্রথম পাওয়ার প্লে-তে কোনো উইকেট না হারানো ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৫২ রানের বড় পুঁজি দাঁড় করায়। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সেঞ্চুরি পেয়েছেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান। ভারতের দেয়া বড় লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই নড়বড়ে ছিল অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইন আপ। ৫০ ওভার খেলে ৩১৬ রানে অলআউট হওয়ায় ৩৬ রানে ভারতের কাছে পরাজিত হয় অস্ট্রেলিয়া।

একাদশ

ভারত

রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, ভিরাট কোহলি (অধিনায়ক), হার্দিক পান্ডিয়া, মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটরক্ষক), লোকেশ রাহুল, কুলদীপ যাদব, কেদার যাদব, ভুবনেশ্বর কুমার, জাসপ্রীত বুমরা ও যুজবেন্দ্র চাহাল।

অস্ট্রেলিয়া

ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), স্টিভেন স্মিথ, উসমান খাজা, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টইনিস, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেটরক্ষক), নাথান কোল্টার নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক ও এডাম জাম্পা।

ধারাবিবরণী

ওভালে টসে জিতে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন। কোহলির সিদ্ধান্তটি যে ভুল ছিল না তা প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছিল ভারতের দুই ওপেনারের ব্যাটিং দেখেই। ভারতের দুই ওপেনার ইনিংস শুরুর দিকে জুটি গড়ায় মনোযোগ দিতে গিয়ে খানিকটা শ্লথ গতিতে রান তুললেও, উইকেটে থিতু হওয়ার পর রান তুলেছেন বলের সাথে পাল্লা দিয়ে।

একপ্রান্তে রোহিত শর্মা খানিকটা ধীর গতিতে রান তুললেও ধাওয়ান শুরু থেকেই রান তুলেছেন হাত খুলে। প্রথম পাওয়ার প্লে-তে কোনো উইকেট না হারালেও আশানুরূপ রান তুলতে পারেনি ভারত। অস্ট্রেলিয়ার আগের ম্যাচের নায়ক নাথান কোল্টার নাইল রোহিত শর্মাকে নিজের শিকারে পরিণত করে এই ম্যাচেও প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দেন অস্ট্রেলিয়াকে।

শিখর ধাওয়ান; Source: Getty Images

ভারতীয় ইনিংসের ২২.৩ ওভারে আউট হওয়ার আগে ক্যারিয়ারের আরেকটি অর্ধশতকের ইনিংস খেলেন রোহিত। ৭০ বলে ৩টি চার ও ১ ছক্কায় ৫৭ রান করেন এই ওপেনার। রোহিতের বিদায়ের পর উইকেটে আসা ভিরাট কোহলির সাথে শক্ত জুটি গড়েন ধাওয়ান। রোহিত, ধাওয়ান জুটির পর ধাওয়ান, কোহলির জুটি ম্যাচের চালকের আসনে বসায় ভারতকে।

দলীয় ১২৭ রানে প্রথম উইকেট হারানো ভারত তাদের দ্বিতীয় উইকেট হারায় ২২০ রানে। মিচেল স্টার্কের বলে নাথান লায়নের (বদলি ফিল্ডার) হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন শিখর ধাওয়ান। আউট হওয়ার আগে এই ভারতীয় ওপেনার খেলেন ১১৭ রানের অসাধারণ একটি ইনিংস। ১০৯ বলের ইনিংসটিতে ১৬টি চার মারলেও কোনো ছক্কা মারতে পারেননি ধাওয়ান।

ধাওয়ানের উইকেট হারানোর পর স্কোরবোর্ডে দ্রুত রান তোলায় মনোযোগী হয় ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। অধিনায়ক কোহলি এবং হার্দিক পান্ডিয়ার দ্রুতগতির ইনিংসে খেই হারিয়ে ফেলে অজি বোলাররা। ভারতের দলীয় ৩০১ রানে পান্ডিয়া আউট হওয়ার আগে খেলেন ৪৮ রানের বিস্ফোরক একটি ইনিংস। ২৭ বলের ইনিংসটিতে ৪টি চারের পাশাপাশি ৩টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন এই অলরাউন্ডার।

ভিরাট কোহলি; Source: Getty Image

পান্ডিয়ার বিদায়ের পর ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির ১৪ বলের ছোট ইনিংসটিও ভারতের বড় পুঁজি পেতে যথেষ্ট সাহায্য করেছে। মার্কাস স্টয়নিসের বলে আউট হওয়ার আগে এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে ২৭ রান। ভারতের ৩৫২ রানে বড় পুঁজিতে অধিনায়ক কোহলির ৭৭ বলে ৮২ রানের ইনিংসটিও যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছে। অজি বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল স্টয়নিস ২ উইকেট পেয়েছেন ৬২ রানের বিনিময়ে।

ভারতের বড় লক্ষ্য তাড়া করে ম্যাচ জিততে স্কোরবোর্ডে দ্রুত রান তোলার বিকল্প ছিল না অজি ব্যাটসম্যানদের সামনে। কিন্ত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার নিজের স্বভাববিরুদ্ধ শ্লথ গতিতে রান তোলায় শুরু থেকেই চাপে ছিল অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বলের সাথে পাল্লা দিয়ে রান তুলে অজি শিবিরের আশার আলো ফোটালেও, তার রান আউটে ম্যাচ থেকে খানিকটা ছিটকে যায় অস্ট্রেলিয়া।

ভিরাট কোহলি; Source: Getty Image

আউট হওয়ার আগে ৩৫ বলে ৩৬ রানের একটি ইনিংস আসে ফিঞ্চের ব্যাট থেকে৷ ফিঞ্চের বিদায়ের পর ওপেনার ওয়ার্নারের সাথে জুটি বাঁধেন সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ার দলীয় ১৩৩ রানে ডেভিড ওয়ার্নারের বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। যুজবেন্দ্র চাহালের শিকারে পরিণত হওয়ার আগে এই ব্যাটসম্যান খেলেন ৮৪ বলে ৫৬ রানের ধীরগতির একটি ইনিংস।

ভুবনেশ্বর কুমার; Source: Getty Image

অস্ট্রেলিয়া ইনিংসের ৩৬.৪ ওভারে বুমরার বলে উসমান খাজা আউট হওয়ার পরে ম্যাচের পুরো নিয়ন্ত্রণ চলে আসে ভারতের হাতে। খাজার বিদায়ের পর উইকেটে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি স্মিথও। দলীয় ২৩৮ রানে আউট হওয়ার আগে এই ব্যাটসম্যান খেলেন ৭০ বলে ৬৯ রানের একটি ঝলমলে ইনিংস। স্টইনিসের বিদায়ের পর উইকেটে আসা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ১৪ বলে ২৮ রানের একটি ঝটিকা ইনিংস খেলে বিদায় নিলে, ভারতের জয়ের পথে অ্যালেক্স ক্যারি ছাড়া আর কোনো অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি।

অ্যালেক্স ক্যারি; Source: Getty Image

অস্ট্রেলিয়া নির্ধারিত ৫০ ওভারে অলআউট হলেও ক্যারি অপরাজিত ছিলেন ৩৫ বলে ৫৫ রান করে। ৩১৬ রানে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের পতন হলে ৩৬ রানের জয় পায় কোহলির ভারত৷ ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে উজ্জ্বল ভুবনেশ্বর কুমার ৩ উইকেট নিয়েছেন ৫০ রানের বিনিময়ে। ১১৭ রানের ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলার জন্য ম্যাচসেরার পুরষ্কার উঠেছে শিখর ধাওয়ানের হাতে৷

Featured Photo Credit: Getty Image

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *