শর্ট ফরমেটে সেরা, অথচ টেস্টে অচেনা

২০১৯ অ্যাশেজ সিরিজের অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দেন টিম পেইন; অথচ তিনি ছিলেন না সদ্য শেষ হওয়া বিশ্বকাপের স্কোয়াডে। অ্যালাস্টেয়ার কুক ইংল্যান্ডের হয়ে ২০০৬ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত টেস্ট খেলেছেন৷ টেস্টে ইংলিশদের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী৷ অথচ টি-টোয়েন্টিতে একেবারেই অপরিচিত, খেলেছেন মাত্র ৪ ম্যাচ। একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচও খেলেন ১১০টি৷

Image Source: ESPNCricinfo

২০১৪ সালে শর্ট ফরমেটে বিদায় নেন কুক। কিন্তু টেস্ট স্পেশালিস্ট হিসেবে সুনাম কুড়িয়ে খেলে গেছেন ২০১৮ সাল পর্যন্ত। ইতিহাসে এমন অনেক ক্রিকেটার আছেন যারা শর্ট ফরমেটে সোনালী সময় পার করলেও লঙ্গার ভার্সনে নিজেকে তুলে ধরতে পারেননি। আবার অনেকে আছেন কেবল টেস্ট খেলেই ক্যারিয়ারের ইতি টানেন।

চলুন জেনে নেওয়া যাক বর্তমানের সেরা কয়েকজন শর্ট ফরমেটের খেলোয়াড় সম্পর্কে যারা টেস্টে নিয়মিত হতে পারেন।

মার্টিন গাপটিল

নিউজিল্যান্ডের হয়ে এখন পর্যন্ত যত তারকা খেলোয়াড় খেলেছেন কিংবা খেলছেন তার মধ্যে অবশ্যই মার্টিন গাপটিল একজন। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে তার প্রায় ছয় হাজারেরও বেশিও রান রয়েছে। এখন পর্যন্ত একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে ব্যাট করেছেন ১৭৬ ইনিংস। করেছেন ৬,৬২৬ রান। গড় রয়েছে ৪২.২০। তিনি একমাত্র কিউই ব্যাটসম্যান, যার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দ্বিশতক রয়েছে।

Image Source: ESPNCricinfo

২০১১ বিশ্বকাপে তিনি ছিলেন কিউইদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে ছিলেন টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে উজ্জ্বল হলেও তার টেস্ট ক্যারিয়ার তেমন উজ্জ্বল নয়৷ ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত মাত্র ৪৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ পান তিনি। যাতে ২৯.৪ গড়ে করেছেন ২,৫৮৬ রান।

ফখর জামান

২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি চলাকালীন একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় ফখর জামানের। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অর্ধশতক আর ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে তার শতকে জয়ের দেখা পায় পাকিস্তান। আইসিসির কোনো ইভেন্টে তিনি একমাত্র পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান যার শতক রয়েছে।

Image Source: ESPNCricinfo

২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম পাকিস্তানি হিসেবে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দ্বিশতকের দেখা পান ফখর। ২ বছরের একদিনের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ৪৪টি ম্যাচ খেলে ফেললেও এখন পর্যন্ত মাত্র ৩টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ৬ ইনিংস ব্যাট করে অর্ধশতক হাঁকান ২টি। ২০১৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার টেস্টে অভিষেক হয়।

Image Source: ESPNCricinfo

অভিষিক্ত ম্যাচের দুই ইনিংসে তিনি ১৬০ রান করেন। তার অনবদ্য ব্যাটিংয়ে সে ম্যাচে ৩৭৩ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় তারা। ২০১৮ সালের শেষ দিকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যায় পাকিস্তান। সেখানে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে দলের হার ও তার ব্যর্থতায় তৃতীয় টেস্টে বাদ পড়েন তিনি। সেটিই ছিল তার সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ।

ইয়ন মর্গান

বর্তমানে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অন্যতম আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান মর্গান। তার হাত দিয়েই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পায় ইংলিশরা এবং তার অধীনে ওডিআই র‍্যাংকিংয়ে সেরা সাফল্য পায় তারা। ২০১১ সাল থেকে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ও ২০১২ সাল থেকে টি-টোয়েন্টিতে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন তিনি।

Image Source: ESPNCricinfo

শর্ট ফরমেটে ইংল্যান্ডের হয়ে রাজত্ব করা মর্গান যেন টেস্ট ক্রিকেটে এক অপরিচিত মুখ। যেখানে তার ওডিআই ম্যাচ সংখ্যা ২৩৩টি, টি-টোয়েন্টি ম্যাচ সংখ্যা ৮১টি, সেখানে টেস্ট খেলেছেন মাত্র ১৬টি। রান করেছেন ৭০০। অথচ, তিনি এক দিনের ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহক। তার রান সংখ্যা সাত হাজারেরও উপরে।

Image Source: ESPNCricinfo

২০০৬ সালে ওডিআইতে অভিষেক হয়েছিল মর্গানের। ৪ বছর পর ২০১০ সালে টেস্টে অভিষেক হয় তার। ২০১২ সালে আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেন।

জেসন রয়

শর্ট ফরমেটে আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে খেলার জন্য টিম ম্যাটসদের কাছ থেকে ‘দ্য লায়ন’ নামে বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন রয়। ২০১৯ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পেছনে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকাও পালন করেন তিনি। এই আসরে ৭ ইনিংস ব্যাট করে ৪৪৩ রান করেন। তাতে ১৫০ রানের ইনিংসও ছিল একটি।

Image Source: ESPNCricinfo

২০১৪ সালে টি-টোয়েন্টি অভিষেক ও ২০১৫ সালে ওডিআই অভিষেক হয় তার। ২০১৯ বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে থাকায় আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ৫ বছর পর টেস্টে ডাক পান তিনি। ২০১৯ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে অভিষেক হয় তার। তারপর জায়গা করে নেন অ্যাশেজ সিরিজেও। সেখানেও ৪টি ম্যাচ খেলেন তিনি।

Image Source: ESPNCricinfo

৫ টেস্ট, ৮৪ ওডিআই ও ৩২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন রয়। ওডিআইতে তার রান সংখ্যা ৩,৩৮১। গড় ৪২.৭৯। ইংল্যান্ডের অন্যতম সেরা উদীয়মান ক্রিকেটার হিসেবে তাকে বিবেচনা করা হয়।

রোহিত শর্মা

সর্বকালের সেরা কয়েকজন ওপেনারের তালিকা করলে নিঃসন্দেহে ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা সে তালিকার উপরের দিকে থাকবেন। আক্রমণাত্মক ও দৃষ্টিনন্দন ক্রিকেট খেলার জন্য ক্রিকেট পাড়ায় নিজেকে “হিট ম্যান” হিসেবে সমাদৃত করেছেন এই হার্ড হিটার। ২০০৭ সালে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার অভিষেক হয়।

Image Source: ESPNCricinfo

এরপর খেলে ফেলেছেন প্রায় ২১৮টি ম্যাচ। আছে ২৭টি শতক, করেছেন ৮,৬৮৬ রান। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রোহিত একমাত্র ব্যাটসম্যান যার ৪টি শতক রয়েছে।একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের ওপেনিং পার্টনারশিপে লিড দেওয়া রোহিত শর্মা নামটা যেন টেস্ট ক্রিকেটে একবারেই অচেনা। ২০০৭ সালে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া রোহিতের টেস্ট ক্যারিয়ার শুরু হয় ৬ বছর পর ২০১৩ সালে।

Image Source: ESPNCricinfo

টেস্টে তার ক্যারিয়ারের ৬ বছর কেটে গেলেও নিয়মিত হতে পারেননি দলে। খেলেছেন মাত্র ২৭টি ম্যাচ। যেখানে ওডিআই ম্যাচের সংখ্যা ২১৮টি। ২০১৩ সালে অভিষেক টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৭৭ রানের নজরকাড়া পারফরম্যান্স করেন তিনি। এটিই তার টেস্টে সর্বোচ্চ রান। টেস্টে তার মোট রান ১,৫৮৫।

Featured Image Source: ESPNCricinfo

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *